ঝালকাঠিতে ছাত্র অধিকার পরিষদের কর্মীসভায় ছাত্রলীগের হামলা / কেন্দ্রীয় নেতাসহ আহত ৩

প্রকাশিত: ২:২০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৪, ২০২০

ঝালকাঠিতে ছাত্র অধিকার পরিষদের কর্মীসভায়  ছাত্রলীগের হামলা / কেন্দ্রীয় নেতাসহ আহত ৩

ঝালকাঠি প্রতিনিধি \
ঝালকাঠিতে ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের কর্মীসভায় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার বিকেলে ধানসিঁড়ি ইকাপার্কে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বায়ক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরু ভিভিও কনফারেন্সে বক্তব্য দিচ্ছিলেন। হামলায় যুব অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আবু সাঈদ মুসা, বরিশাল জেলা ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি রনি খন্দকার ও ঝালকাঠি জেলা ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি মো. ফয়সাল আহম্মেদ আহত হয়। গুরুতর অবস্থায় তাদের বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আহতরা জানান, ঝালকাঠি জেলা ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের কর্মী সভার আয়োজন করে শহরের বাইরে ধানসিঁড়ি ইকোপার্কে। সভায় ভিডিও কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরু। এ সময় ঝালকাঠি পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাদিম মাহমুদের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের ১০-১২ জন নেতাকর্মী অতর্কিতভাবে লাঠিসোটা নিয়ে সভায় হামলা চালায়। ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের পিটুনিতে আহত হয় ছাত্র ও যুব অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের তিন নেতা। কর্মী সভার মাইকও ভাঙচুর করা হয়।
আহত ঝালকাঠি জেলা ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি মো. ফয়সাল আহম্মেদ অভিযোগ করেন, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের হামলায় আহত হলেও আমাদের ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে দেয়নি হামলাকারীরা। পরে আমাদের বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে নেতাকর্মীরা।
ঝালকাঠি পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাদিম মাহমুদ বলেন, ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটুক্তিমূলক বক্তব্য দিচ্ছিল, তাই ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের সভা ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এখানে কাউকে মারধর করা হয়নি।
ঝালকাঠি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খলিলুর রহমান বলেন, কর্মীসভার কোন অনুমতি নেয়নি তারা। ওখানে কি হয়েছে, তাও আমাদের জানা নেই।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ