বঙ্গোপসাগরে নিখোঁজ, ১৩ বছর পর ফিরলেন মায়ের কোলে

প্রকাশিত: ৬:৪৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ৮, ২০২১

বঙ্গোপসাগরে নিখোঁজ, ১৩ বছর পর ফিরলেন মায়ের কোলে

কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে ট্রলারে মাছ শিকার করতে গিয়ে ১৩ বছর আগে নিখোঁজ হয়। আর খোঁজ মেলেনি মিলন আকনের (৩০)। দীর্ঘ ১৩ বছর পর মায়ের কোলে ফিরে এসেছে মিলন। তবে এখন তিনি মানসিক ভারসম্যহীন।

মিলন আকন কুয়াকাটা পৌরসভার ৩নম্বর ওয়ার্ডের শাহ-আলম আকনের বড় ছেলে। বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে তাকে তালতলী উপজেলা থেকে ট্রলারযোগে কুয়াকাটায় নিয়ে আসে পরিবারের সদস্যরা।

গত মঙ্গলবার মা মিনারা বেগমকে এক আত্মীয় জানান পার্শ্ববর্তী জেলা বরগুনার আমতলীতে আকনকে পাগল বেশে দেখতে পেয়েছেন। তার তথ্য মতে সেখানে যান মিনারা বেগম এবং তার ছেলে রুবেল আকন। তারা গিয়ে মিলনের পরিচয় নিশ্চিত করে। পরে তাকে ট্রলারযোগে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়।

মিলনের বাবা শাহ-আলম আকন বলেন, আমার ছেলে মিলন ২০০৮ সালে সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়েছিল। তার সঙ্গে মো. ফারুক (১২), খোকন (২৫) নামে আরো দুজন ছিল তারা কেউই ফেরেনি। অনেক খোঁজাখুঁজি করেছি তাদেরকে। হঠাৎ দুদিন হলো শুনতে পেয়েছি আমার ছেলে মিলনকে নাকি পাওয়া গেছে তালতলী। পরে ওর মা গিয়ে নিয়ে আসছে এবং এটা যে আমার ছেলে তা আমি পুরোপুরি নিশ্চিত।

মা মিনারা বেগম বলেন, আমার ছেলেকে আমি দীর্ঘ ১৩ বছর পর আমার বুকে ফিরে পেয়েছি। আমি অনেকদিন এই সাগর পারে পারে ছেলের খোঁজে দিন কাটিয়েছি। আজ আমার আর কোনো কিছু চাওয়ার নেই, আমার ছেলেটা এখন মানসিক অসুস্থ। আমি এখন ওরে চিকিৎসা করাবো।সুস্থ হলে বলতে পারবে এতদিন কোথায় ছিল।

কুয়াকাটা পৌরসভার ৩নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মনির শরীফ জানান, আমার ওয়াডের মিলন নামের ছেলেটি ২০০৮ সালে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছিল। আজকে তাকে তার পরিবার তালতলী থেকে বাড়িতে নিয়ে আসছে। তার বাবা, মা, পরিবারের লোক তার গায়ে থাকা যে কাটা দাগের কথা বলতেছে তা পুরোপুরি মিলছে। তার সঙ্গে জেলেদের মাধ্যমে আমি মিলনের পরিচয় নিশ্চিত হয়েছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ