সরকারী হল বরিশাল আব্দুর রব সেরনিয়াবাত কলেজ

প্রকাশিত: ৭:২৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১, ২০২১

সরকারী হল বরিশাল আব্দুর রব সেরনিয়াবাত কলেজ

সরকারী হল বরিশাল আব্দুর রব সেরনিয়াবাত কলেজ। ২৬ আগষ্ট শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। কলেজটি সরকারীকরণ হওয়ায় অবহেলিত কাউনিয়া এলাকার মানুষের মাঝে আনন্দ ছড়িয়ে পড়েছে। কলেজের গভানিং বডি এবং শিক্ষক কর্মচারীবৃন্দ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারপ্রতি কৃতজ্ঘতা জানেিয়ছেন।
৯০ দশকে নগরী উত্তর কাউনিয়ায় সাবেক পৌরসভার ময়লা ফেল হত বিশাল একটি এলাকা জুড়ে। এ জন্য এ এলাকাটি ময়লাখোলা নামে পরিচিত ছিল। আওয়ামীলীগ নেত্রী সাহনারা বেগম এর পিতা বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী, সমাজসেবক মরহুম আলহাজ মোখলেছুর রহমান সে সময়ে অবহেলিত কাউনিয়ায় একটি কলেজ প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেন। স্থান অভাবে তিনি এই ময়লা খোলাকেই বেছে নেন। ১৯৯৭ সালের ১০ই এপ্রিল কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন। নিজ উদ্যোগে তৈরি করে একটি টিনের ঘর। সেখানেই প্রতিষ্ঠা করা হয় শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত কলেজ। সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন তার মেয়ে জামাতা, সাবেক চিফ হুইপ আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ। এ সময়ে ময়লা খেলার ময়লা সরিয়ে মাটি ভরাট করা হয়। ধীরে ধীরে টিনের ঘরের স্থানে পাকা ভবন ওঠে। প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে কলেজেটির সভাপতি ছিলেন জেলা প্রশাসক। প্রত্যেক জেলা প্রশাসকই কলেজটির উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন।আর মৃত্যুর আগ পর্যন্ত কলেজটির উন্নয়নে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যান প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব মোখলেছুর রহমান। দপ্তর থেকে দপ্তরে ছুটে যেতেন সে সময়ে ৭০ উর্ধ কাজী মোখলেছুর রহমান। স্থানীয় স্কুলগুলোতে নিয়মিত ধর্ণা দিতেন এসএসসি পাশ করা ছাত্র ছাত্রীদের যেন এ কলেজে ভর্তি করা হয়। তার সময়েই একঝাক মেধাবি শিক্ষক যোগদান করেন এ কলেজে। পড়ালেখা এবং পাসের হারও ছিল ইর্ষনীয়। ইচ্ছে ছিল তার জীবদ্দশায় তিনি কলেজটির সরকারীকরণ হওয়ার। কিন্তু তিনি তা দেখে যেতে পারেননি। তার মৃত্যুর পর কলেজটির হাল ধরেন তার বড় পুত্র কাজি মফিজুল ইসলাম কামাল। প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসাবে তিনি পিতার অসামপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করেন। সরকারী করণে নেপথ্যে পুর্ন সহযোগিতা করে যান আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ। তার প্রচেষ্টায় শেষ পর্যন্ত কলেজটি সরকারীকরণ হল।
৩১শে আগস্ট শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী স্মারক নম্বর ৩৭,০০,০০০০,০৭০,৪১,০০১,১৮,১৫০ ‘সরকারিকৃত কলেজ শিক্ষক আত্তীকরণ বিধিমালা ২০১৮’এর আলোকে ২৬শে আগস্ট ২০২১তারিখ থেকে সরকারি করা হলো। আর এ প্রজ্ঞাপন জারি হবার সাথে সাথে এলাকাবাসীর মধ্যে আনন্দ ছড়িয়ে পড়ে। আব্দুর রব সেরনিয়াবাত কলেজটি বিশাল কাউনিয়া এলাকায় একমাত্র কলেজ। এবং এটি এখন সরকারী কলেজে রূপান্তরিত হল।

কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য কাজি মফিজুল ইসলাম কামাল কলেজটি সরকারীকরণের জন্য প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সাবেক চিফ হুইফ আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। কাজি কামাল জানান, বর্তমানে কলেজে সহস্রাধিক শিক্ষার্থী আছে। ১নং ২নং, ৩নং, ও ৭নংওয়ার্ডে এই একটি মাত্র কলেজ। কলেজের শিক্ষার্থীদের বেশিরভাগই দরিদ্র পরিবারের সন্তান। কলেজটি সরকারীকরণ হওয়ায় এ অঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের আশা পূরণ হল।
মহানগর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ হোসেন চৌধুরী জানান, যখন কাজী মোখলেছেুর রহমান ময়লাখোলায় কলেজটি স্থাপনের পরিকল্পনা করেন, তখন অনেকের কাছেই বিষয়টি অবাস্তব মনে হয়েছিল। কিন্তু তার অক্লান্ত পরিশ্রম এবং আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর সহযোগিতায় শেষ পর্যন্ত কলেজটি বাস্তবে রূপ নেয়। আজ হাসানাত আব্দুল্লাহর কারনে কলেজটি সরকারী হয়েছে, যার জন্য এলাকার দরিদ্র শিক্ষার্থীরা বিশেষভাবে উপকৃত হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ