কুয়াকাটা সৈকতে এবার ভেসে এল ১২ ফুট দৈর্ঘ্যের মৃত ডলফিন

প্রকাশিত: ৭:১১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২, ২০২১

কুয়াকাটা সৈকতে এবার ভেসে এল ১২ ফুট দৈর্ঘ্যের মৃত ডলফিন

কুয়াকাটা সংবাদদাতা ॥ পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকতের জিরো পয়েন্ট থেকে চার কিলোমিটার পূর্ব দিকের ফরেস্ট ক্যাম্প এলাকায় ১২ ফুট দৈর্ঘ্যের একটি মৃত ডলফিন ভেসে এসেছে। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে ডলফিনটিকে স্থানীয় লোকজন দেখতে পান। স্থানীয় জেলেরা জানান, হয়তো আজ ভোরে জোয়ারের সময় ডলফিনটি ভেসে এসেছে।
এ নিয়ে গত ৯ মাসে কুয়াকাটা সৈকতে ১২টি মৃত ডলফিন ভেসে এল। এর মধ্যে শুধু আগস্ট মাসেই নয়টি মৃত ডলফিন ভেসে এসেছে। তা ছাড়া বিগত বছরেও কুয়াকাটাসংলগ্ন উপকূলে সাত-আটটি মৃত ডলফিন ভেসে এসেছিল।
কুয়াকাটা ডলফিন রক্ষা কমিটির দলনেতা রুমান ইমতিয়াজ তুষার বলেন, ‘এ পর্যন্ত ভেসে আসা ডলফিনের মধ্যে এটি হলো সবচেয়ে বড়। এর মুখে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে এবং লেজের সঙ্গে দড়ি বাঁধা রয়েছে। আমরা বন্ধুপ্রাণী ডলফিন রক্ষায় পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য কয়েক মাস ধরে জোরালো দাবি জানিয়ে আসছি। অথচ এ নিয়ে কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে মনে হয় না।’
এ নিয়ে গত ৯ মাসে কুয়াকাটা সৈকতে ১২টি মৃত ডলফিন ভেসে এল। এর মধ্যে শুধু আগস্ট মাসেই নয়টি মৃত ডলফিন ভেসে এসেছে।
উপকূলের জীববৈচিত্র্য রক্ষা, মৎস্য ব্যবস্থাপনা ও সমুদ্রভিত্তিক নীল অর্থনীতি নিয়ে কাজ করা গবেষণা প্রতিষ্ঠান ওয়ার্ল্ডফিশের ইকো ফিশ-২ প্রকল্পের পটুয়াখালী জেলার সহযোগী গবেষক সাগরিকা স্মৃতি বলেন, ‘ডলফিনগুলোর মারা যাওয়ার সঠিক কারণ খুঁজে বের করতে উদ্যোগ নেওয়া দরকার। মৃত ডলফিনের টিস্যু কালচার করলে হয়তো প্রকৃত কারণ বের করা যায়। তা ছাড়া সামুদ্রিক জীববৈচিত্র্যের নিরাপদ আবাসস্থল নিশ্চিত করাও জরুরি। এ নিয়ে আমরা বারবার বলে আসছি।’
কলাপাড়া উপজেলার জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা অপু সাহা বলেন, স্থানীয় জেলেরা তাঁকে এ খবর জানিয়েছেন। তবে কী কারণে ডলফিনটি মারা গেল, তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। ইতিমধ্যে মৃত ডলফিনগুলোকে মাটি চাপা দেওয়া হয়েছে। এই মৎস্য কর্মকর্তা আরও বলেন, ডলফিন কেন মারা যাচ্ছে, তার কারণ খুঁজে বের করা হবে। এ জন্য চিন্তাভাবনা চলছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ